মরনফাদ-রাতের ট্রেনের বাথরুম

যারা ট্রেনে যাতায়াত করেন তাদের জন্য রাতে যাতায়াতে কিছুটা সাবধানতা অবলম্বন করা প্রয়োজন। বিশেষ করে গভীর রাতে ট্রেনের বাথরুমে একা না যাওয়াই শ্রেয়। একান্ত‌ই যদি যেতে হয় তাহলে সাথে অন্য কাউকে নিয়ে যাওয়া উচিৎ।

এ সতর্কতার কারণ অনেক সময় বাথরুমের সামনে যাত্রীবেশে অবস্থান করে কোন কোন দুষ্কৃতকারী। সিট না পেয়ে তারা এখানে অবস্থান করছে বলে এদের অবস্থানকে স্বাভাবিক বলেই সকলে ধরে নেয়। আসলে তারাই কোন অচেতনকারী পদার্থ ব্যবহার করে বাথরুমে আগমনকারী যাত্রীর মুখ চেপে ধরে। ক্ষেত্র বিশেষ যাত্রীর কাছে থাকা টাকা-পয়সা ও মূল্যবান জিনিসপত্র হাতিয়ে নেয়। এরপর তাকে বাথরুমের সামনে বা ট্রেন থেকে বাইরে ধাক্কা মেরে ফেলেও দিতে পারে।

এ ধরনের ঘটনায় অনেক সময় ট্রেন এর বাথরুমের সামনে অচেতন অবস্থায় আবার কখনও কখনও ট্রেন হতে যাত্রী পড়ে অচেতন ও আহত মানুষও পাওয়া যায়। তবে এসব ক্ষেত্রে যাত্রীর কোন অসুস্থতায় এটি হয়েছে বলে সবাই ধারনা করলেও; এর আসল কারন অসুস্থতা নয়। এটি দুস্কৃতকারী একটি চক্রের কাজ। তবে এসি বার্থ কমপার্টমেন্ট এর বাথরুমের পাশের দরজা লাগানো থাকায় এরুপ ঘটনা এসি বার্থ কম্পার্টমেন্ট এ সাধারনত ঘটে না।

তাই সাবধান! থাকুন এরুপ দুস্কৃতকারী চক্রের হাত থেকে।

18 Replies to “মরনফাদ-রাতের ট্রেনের বাথরুম”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *