এনআইডি তথ্য ভান্ডার ব্যবহার করে নাগরিক শনাক্তকরন

সরকারী-বেসরকারী ১৩৯ টি সংস্থা এনআইডি ভেরিফিকেশন সিস্টেম ব্যবহার করলেও এখনও গুরুত্বপূর্ণ অনেক সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠান এনআইডি অনলাইন সিস্টেমে যুক্ত হননি। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি সরকারী ব্যাংক এখনও এই সেবা গ্রহণ করছে না। ফলে অনেক জালিয়াত চক্র ভুয়া/জাল এনআইডি জমা দিয়ে বিভিন্ন অপকর্ম করার সুযোগ পাচ্ছে। এজন্য সরকারী বা বেসরকারী প্রতিষ্ঠান যাদের প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কর্মচারীদের বা সেবা গ্রহণকারীদের পরিচয় শনাক্ত করা প্রয়োজন তারা নির্বাচন কমিশনের নিকট ডাটা ভেরিফিকেশন সিস্টেম ব্যবহার করার জন্য আবেদন করতে পারেন।

জাতীয় তথ্যভান্ডারের ডাটা ভেরিফিকেশন সার্ভিস ব্যবহার করতে প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব লেটার হেড প্যাডে পত্র পাঠাতে হবে। প্রতিষ্ঠান এর প্রধান নির্বাহী স্বাক্ষরিত পত্র সচিব, নির্বাচন কমিশন সচিবালয় বরাবর পাঠাতে হবে। প্রত্যাশী সংস্থা বা প্রতিষ্ঠান ভিজিট করে ভেরিফিকেশন সার্ভিস প্রদান করার বিষয়টি অনুমোদন কআ হবে। অতপর নিবন্ধন পাবেন এনআইডি ভেরিফিকেশন সার্ভিস ব্যবহারের। তবে তার আগে একটি দ্বিপাক্ষিক চুক্তি বা মেমোরান্ডাম অব আন্ডারস্ট্যান্ডিং (MOU) স্বাক্ষর করতে হবে। মেমোরান্ডাম অব আন্ডারস্ট্যান্ডিং এ ব্যবহারের সকল শর্তাদি থাকবে। এছাড়া ট্রেজারী চালানের মাধ্যমে এককালীন ৫ লক্ষ টাকার অফেরতযোগ্য নিবন্ধন ফি জমা করতে হবে।

নিবন্ধন পাওয়ার পর API বা পোর্টাল বেইজড সার্ভিস ব্যবহারে পাবেন ইউজার হিসেবে লগইন এক্সেস। যার মাধ্যমে আপনি ব্যবহার করতে পারবেন জাতীয় তথ্য ভান্ডারের নাগরিকদের তথ্য। জাতীয় তথ্য ভান্ডারের প্রতিটি তথ্য যাচাই করতে এর চার্জ প্রদান করতে হবে। বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে প্রতি যাচাইয়ের জন্য চার্য প্রদান করতে হবে দুই টাকা। তবে সরকারী প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে ১ টাকা হারে যা প্রদান করতে হবে। প্রতি মাসের ব্যবহার ফি পরবর্তী মাসের ১০ তারিখের মধ্যে পরিশোধ করতে হবে। এছাড়া প্রতি বছর প্রদান করতে হবে নিবন্ধন নবায়ন ফি।

এই তথ্য ভান্ডারের তথ্য যাচাই সুবিধা ব্যবহার করে সহজেই প্রতিষ্ঠানের জমাকৃত এনআইডি যাচাই করে জানা যাবে প্রদত্ত জাতীয় পরিচয়পত্রটি সঠিক কিনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.