সাময়িক জাতীয় পরিচয়পত্রের ইতিবৃত্ত

২০১৮ সালের মার্চ মাস হতে ২০২০ সালের মার্চ পর্যন্ত নির্বাচন কমিশন এর এনআইডি কর্তৃপক্ষ নাগরিকদের নতুন নিবন্ধন, হারানো/নষ্ট কার্ড রি-ইস্যু এবং সংশোধন বা ঠিকানা পরিবর্তনের ক্ষেত্রে প্রায় ১.২ কোটি নাগরিককে প্লাস্টিক লেমিনেটেড কার্ড প্রদান করেছিল। ঐ সব এনআইডি ছিল ২ বছর মেয়াদ উল্লেখিত সাময়িক জাতীয় পরিচয়পত্র

২০২০ সালের জুন মাসের মধ্যে সকল নাগরিককে স্মার্ট কার্ড প্রদান করা সম্পন্ন করার এবং প্লাস্টিক লেমিনেটেড কার্ড বাতিল করে দেয়ার পরিকল্পনা নিয়ে এটি করা হয়েছিল। তবে সকলকে এই সময়ের মধ্যে স্মার্ট কার্ড প্রদান সম্পন্ন করতে না পারায় সৃষ্ট জটিলতা নিরসনে এসব কার্ডধারীদের মেয়াদ উল্লেখ ব্যতীত জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি অনলাইনে ডাউনলোড করতে দেয়ার সুযোগ প্রদান করে এনআইডি কর্তৃপক্ষ তথা নির্বাচন কমিশন।

নাগরিক সেবা পেতে যাতে সমস্যা না হয় সেজন্য এই কার্ডের গায়ে মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে তা দৃশ্যমান হলেও ডাটাবেজে এ শেষ হলেও এসব কার্ড ভ্যালিড বা একটিভ হিসেবে রেখে সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান সমূহকে পত্র-পত্রিকা এবং চিঠি-পত্রের মাধ্যমে সেবা প্রদানে এই ধরনের কার্ড গ্রহণ করতেও অনুরোধ করেছে এনআইডি কর্তৃপক্ষ।

এসব কার্ডধারীগণ NID Online Services এ আবেদন করে https://services.nidw.gov.bd/ রেজিস্টার ও লগইন করে তাদের এনআইডি কার্ডের কপি (মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ উল্লেখ ব্যতীত এবং সাময়িক জাতীয় পরিচয়পত্র লেখার পরিবর্তে জাতীয় পরিচয়পত্র লেখা) ডাউনলোড করার সুযোগ পাচ্ছে।

এর ফলে প্রতিদিন প্রায় কয়েক হাজার নাগরিক NID অনলাইন সার্ভিসের রেজিস্টার অপশনে https://services.nidw.gov.bd/registration তাদের নিজেদের NID ও মোবাইল নম্বর দিয়ে রেজিস্টার করে কার্ড ডাউনলোড করার সুবিধা গ্রহণ করছে। যে কপিটি রঙ্গিন কালিতে প্রিন্ট করে দুপাশ ভাজ করে লেমিনেটিং করলে নির্বাচন কমিশন হতে যেভাবে প্লাস্টিক লেমিনেটেড কার্ড সরবরাহ করা হতো হুবহু সেই রকম কার্ড হয়ে যাবে।

তবে শুধু সাময়িক কার্ডধারীগণই নন, যে কোন এনআইডি কার্ডধারী https://services.nidw.gov.bd/registration এই লিংকে রেজিস্টার ও লগইন করে তাদের সমূদয় ডাটা দেখতে এবং প্রয়োজনে আপডেট করার জন্য আবেদন সাবমিট করতে পারেন। সকল নাগরিকেরই এই সিস্টেমে রেজিস্টার করে দেখা উচিত এজন্য যে, তাদের ডাটা কিভাবে এন্ট্রি করা আছে এবং তা সঠিক বা হালনাগাদ অবস্থায় আছে কিনা। নাগরিকগণ তাদের প্রয়োজনে এই এনআইডি অনলাইন সিস্টেম হতে হারানো/বিনষ্ট কার্ড রি-ইস্যু বা কোন তথ্য সংশোধন/আপডেট করার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

এনআইডি অনলাইন সেবার মাধ্যমে কোন আবেদন সাবমিট করলে তা খুবই দ্রুততার সাথে নিষ্পত্তি করা হচ্ছে। এনআইডি অনলাইন সার্ভিস ব্যবহার করে সবকিছুই এখন ঘরে বসে সম্পাদন করার সুযোগ দিয়েছে এনআইডি কর্তৃপক্ষ। যে কারণে এই করোনা মহামারীর সময় নিরাপদ থেকে ঘরে বসেই এসব সেবা নেয়া উচিত হবে।

এনআইডি সিস্টেমে কোন সেবার জন্য আবেদন করতে প্রযোজ্য ফি জমা দিতেও ব্যাংকে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। রকেট/টি-ক্যাশ/ওকে ওয়ালেট এ্যাপস মোবাইলে ডাউনলোড করে মার্চেন্ট লিস্ট হতে নির্বাচন কমিশন সিলেক্ট করে নির্ধারিত পদ্ধতি অনুসরন করে ঘরে বসেই সকল ফি প্রদান করা সম্ভব ।

আবেদন অনুমোদন হলে নতুন/সংশোধিত/ডুপ্লিকেট ইস্যুকৃত কার্ডটিও ডাউনলোড করার সুযোগ থাকছে অনলাইন একাউন্ট হতেই!

104 Replies to “সাময়িক জাতীয় পরিচয়পত্রের ইতিবৃত্ত”

    1. আপনি অনলাইনে services.nidw.gov.bd লিংকে গিয়ে সংশ্লিষ্ট ডকুমেন্টস সমূহ সংযুক্ত করে এবং রকেট/টি-ক্যাশ/ওকে ওযালেট এ ফি পরিশোধ করে সংশোধনের আবেদন সাবমিট করতে পারেন। কর্তৃপক্ষ যাচাইপূর্বক আবেদন অনুমোদন করলে আপনি অনলাইনে অথবা সংশ্লিষ্ট অফিস হতে সংশোধিত কার্ড নিতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *