বাসায় বসেই নিন জাতীয় পরিচয়পত্র

প্রেক্ষাপট

ব্যাংকিং প্রয়োজন, চাকরীর আবেদন, বিবাহ-তালাক, স্কুল/কলেজ/বিশ্ববিদ্যালয়/হাসপাতালে ভর্তি, বেতন/পেনশন ফিক্সেশন, পাসপোর্ট এর আবেদন, ভিসা প্রাপ্তি, ট্রেন এর টিকেট প্রাপ্তি, সরকারী অনুদান/ভাতা প্রাপ্তি, টিকা গ্রহণ সর্বত্রই প্রয়োজন এনআইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয়পত্র।

এজন্য এনআইডি কার্ড প্রাপ্তির জন্য এখন নির্বাচন অফিসে না গিয়ে এনআইডি পোর্টাল হতে নতুন/হারানো/স্থানান্তরিত/সংশোধিত কার্ড ডাউনলোড করে নেয়ার সুযোগ রয়েছে। এজন্য শুধু প্রয়োজন এর পদ্ধতি জানা।

পদ্ধতি

এজন্য এনআইডি অনলাইন সার্ভিসেস পোর্টাল https://services.nidw.gov.bd/nid-pub/claim-account এ গিয়ে প্রথমে আপনার এনআইডি/ফরম নম্বর (এনআইডি নম্বর না জানা থাকলে) ও মোবাইল নম্বর দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে একটি একাউন্ট তৈরী করে নিতে হবে। এজন্য সহজতর কয়েকটি ধাপ অনুসরন করে স্থায়ী ও বর্তমান ঠিকানার প্রয়োজনীয় কিছু তথ্য, যেমন: বিভাগ, জেলা, থানা ও ইউনিয়ন/পৌরসভা বা সিটি কর্পোরেশনের ওয়ার্ড নম্বর প্রদান করার প্রয়োজন হতে পারে। একাউন্ট এর জন্য রেজিস্টার করতে ৩ বার ভুল তথ্য প্রদান করলে আপনাকে লক/ব্লক করে দেয়া হবে। এজন্য সঠিক তথ্য এন্ট্রি পূর্বক একাউন্ট রেজিস্টার করতে হবে। তবে যদি কোন কারণে একবার লক হয়ে যায় তাহলে পরক্ষনেই আর চেষ্টা না করে সঠিক তথ্য সংগ্রহ করে ৮ ঘন্টা পর আবার চেষ্টা করতে পারবেন। কারণ ৮ ঘন্টা পর স্বয়ংক্রিয়ভাবেই উক্ত আইডিটির ব্লক/লক খুলে দেয়া হয়।

নতুন/হারানো বা নষ্ট/স্থানান্তরিত/সংশোধিত কার্ড প্রাপ্তিঃ

যারা ভোটার হয়েছেন/এনআইডি কার্ড পেতে পরিচয় নিবন্ধন করেছেন কিন্তু জাতীয় পরিচয়পত্র পাননি বা কার্ড রি-ইস্যু/সংশোধনের আবেদন করেছেন এবং আবেদনটি অনুমোদিত হয়েছে মর্মে মেসেজ পেয়েছেন তাদের জাতীয় পরিচয়পত্রের পরিমর্জিত  কপি অনলাইনে পেতে  “লগইন” মেনুতে গিয়ে ইউজার আইডি হিসেবে এনআইডি নম্বর ও পাসওয়ার্ড হিসেবে এনআইডি অনলাইন সিস্টেম হতে জেনারেট করা পাসওয়ার্ড ও প্রদর্শিত ক্যাপচা (ছোট/বড় হাতের বর্ণে ভাবে দেখানো হবে সেভাবে) ইনপুট দিয়ে লগইন করতে হবে। লগইন করার পর “ডাউনলোড” মেনু হতে আপনার পরিচয়পত্রের কপি ডাউনলোড করতে পারবেন।

প্রথম বার ডাউনলোড এর ক্ষেত্রে ফি প্রযোজ্য হবে না। তবে, একবার ডাউনলোড করলে পরবর্তীতে আর ডাউনলোড করা যাবে না। এমনকি আপনি ডাইনলোড না করলে আপনার সংশ্লিষ্ট জেলা নির্বাচন অফিসের নিয়মিত কার্যক্রম হিসেবে এটি প্রিন্ট করা হলেও এটি আর আপনার পোর্টাল হতে ডাইনলোড করা যাবে না। সেক্ষেত্রে প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট জেলা/উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করে কার্ডটি সংগ্রহ করতে হতে পারে। এজন্য উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিস হতে কার্ড সংগ্রহ না করতে চাইলে আবেদন অনুমোদন হওয়ার পর যথাসম্ভব দ্রুত কার্ড ডাউনলোড করে নেয়া ভালো। ডাউনলোডকৃত পিডিএফ কপিটি সেভ করে কোন জায়গায় রেখে দিলে পরবর্তীতে কাজে লাগানো যাবে।

এই ডাউলোডকৃত কপিটি কালার প্রিন্টার হতে প্রিন্ট করে দুপাশ ভাজ করে আইডি কার্ড সাইজের লেমিনেটিং পাউচ-এ ঢুকিয়ে লেমিনেট করে নিলেই হয়ে যাবে অরিজিনাল এনআইডি কার্ড। এভাবেই এনআইডি অফিস হতে আপনাকে অরিজিনাল কার্ড তৈরী করে দিত যা এখন আপনি নিজে ঘরে বসেই করতে পারেন। আর নাগরিকদের নির্ধারিত অফিসে উপস্থিত হওয়ার কষ্ট লাঘবে এবং সরকারের অর্থ সাশ্রয় করতে নির্বাচন কমিশন এখন অফিস হতে কার্ড মূদ্রণ অনেকটা সীমিত করে দিয়েছে। এছাড়া এই করোনার লকডাউন টাইমে অনলাইন পোর্টাল হতে নিজের কার্ড নিজেই ডাউনলোড করে নেয়া সবচেয়ে ভালো এবং স্মার্টওয়ে।

10 Replies to “বাসায় বসেই নিন জাতীয় পরিচয়পত্র”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *