এনআইডি ফি ক্যালকুলেটর

বর্তমান সময়ের জনগুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট হিসেবে বর্তমানে এনআইডি সংক্রান্ত বিষয়ে নানা কারণে এর বিভিন্ন তথ্য জানার প্রয়োজন পড়ে। এর মধ্যে বিভিন্ন সময় জানার প্রয়োজন হয় কাঙ্খিত কোন এনআইডি সংক্রান্ত আবেদনের জন্য কত টাকা ফি জমা দিতে হবে।

নেপথ্য কথন

বিভিন্ন সময় প্রয়োজন হয় জাতীয় পরিচয়পত্র বা এনআইডি কার্ড সংশোধন বা হারিয়ে যাওয়ার কারণে পুনরায় উত্তোলন। কখনও প্রয়োজন হয় এনআইডি ডাটাবেজে প্রদত্ত ব্যক্তিগত বিভিন্ন তথ্য আপডেট করার। যেমন, ভোটার নিবন্ধনের সময় কারো পেশা ছিল ছাত্র, কিন্তু এখন তার পেশা চাকরী বা অন্য কিছু। তথ্য প্রদানের সময় সময় কারো শিক্ষাগত যোগ্যতা ছিল হয়তো মাধ্যমিক কিন্তু এখন সে হয়তো স্নাতক বা স্নাতকোত্তর পাশ। নিবন্ধনের সময় কেউ ছিল অবিবাহিত কিন্তু এখন বিবাহিত বা বিপত্নীক বা তালাকপ্রাপ্ত। অবিবাহিত থাকার কারণে নিবন্ধনের সময় স্বামী/স্ত্রীর নাম এবং এনআইডি নম্বর দেয়া ছিল না। এখন এসব তথ্য আপডেট করার প্রয়োজন হতে পারে।

এমনকি কারো আবাসস্থল পরিবর্তন হয়েছে এখন নতুন ঠিকানায় স্থানান্তর করার প্রয়োজন। এছাড়া এমন হতে পারে রক্তের গ্রূপ জানা না থাকার কারণে নিবন্ধনের সময় দেয়া যায়নি। এখন রক্তের গ্রুপ পরীক্ষা করে জানার পর তা আপডেট করা প্রয়োজন। এছাড়াও অন্য যে কোন তথ্য সংশোধন বা আপডেট করার প্রয়োজন পড়তে পারে। সংশোধন এক বা একাধিক বারও প্রয়োজন হতে পারে। এমনকি কার্ড হারিয়ে যাওয়ার বিষয়টিও হতে পারে এক বা একাধিকবার। এমতাবস্থায় কত টাকা ফি প্রদান করতে হবে তা নিশ্চিত না হয়ে কম-বেশী ফি জমা প্রদান করা যায় না। সঠিক পরিমাণ প্রদান না করলে সিস্টেম হতে তা ইনসাফিসিয়েন্ট এমাউন্ট হিসেবে প্রদর্শন করবে। নির্ধারিত পরিমাণ টাকা জমা না দিলে আবেদন এন্ট্রি হবে না।

এই বিষয়টি মাথায় রেখে নির্বাচন কমিশন তথা নির্বাচন কমিশনের এনআইডি অনুবিভাগ একটি ফি ক্যালকুলেটর এ্যাপলিকেশন তৈরী করেছে। যা পাবলিকলি ওপেন করা হয়েছে এনআইডির অনলাইন সার্ভিস পোর্টালে।

এনআইডির কোন সার্ভিসের কত ফি

জাতীয় পরিচয়পত্র সংক্রান্ত কোন সেবার জন্য কত ফি? হারানো, সংশোধন, কার্ড নবায়ন কার জন্য কত ফি তা জানা যাবে https://services.nidw.gov.bd/fees এই লিংক হতে।

কোথায় পাওয়া যাবে এনআইডি ফি ক্যালকুলেটর

ওর্য়াল্ড ওয়াইড ওয়েব এ এনআইডি’র অনলাইন সার্ভিস পোর্টালে ঢুকে https://services.nidw.gov.bd/fees/fee_calculate এনআইডি নম্বর (১০/১৭ সংখ্যার) আবেদনের ধরন, কার্ড ডেলিভারী টাইপ নির্বাচন করতে হবে। এর পর প্রদর্শিত ক্যাপচা ইনপুট দিয়ে ইন্টারফেস এর নিচের দিকে প্রদর্শিত “হিসাব করুন” বাটন চাপ দিতে হব। এতে এনআইডি এপ্লিকেশন হতে তথ্য এনে দেখানো হবে সংশ্লিষ্ট সার্ভিসের জন্য প্রয়োজনীয় ফি এর পরিমাণ।

ফি ক্যালকুলেটর এর বিস্তারিত

এনআইডি নম্বর প্রদান

প্রথমেই ইনপুট দিতে হবে ১০/১৭ সংখ্যার এনআইডি নম্বর। যাদের এনআইডি নম্বর ১৩ সংখ্যার তাদেরকে প্রথমে জন্মসাল ৪ সংখ্যা+আইডি নম্বর ১৩ সংখ্যা=মোট ১৭ সংখ্যা ইনপুট দিতে হবে। অন্যদের সরাসরি কার্ডের গায়ে প্রদর্শিত ১৭ অথবা ১০ সংখ্যার আইডি নম্বর দিতে হবে।

আবেদনের ধরন নির্বাচন

এনআইডি নম্বর ইনপুট দেয়ার পর আবেদনের ধরন নির্বাচন করতে হবে। আবেদনের ধরন হিসেবে ডুপ্লিকেট কার্ড, কার্ডের তথ্য পরিবর্তন এবং অন্যান্য তথ্য পরিবর্তন এই তিনটি অপশন পাওয়া যাবে।

কারো যদি কার্ডটি হারিয়ে যায় বা বিনষ্ট হয় বা স্থানান্তর হয় তাহলে অর্থাৎ কোন তথ্য পরিবর্তন ছাড়াই শুধু কার্ডটি উত্তোলনের প্রয়োজন হয় তাহলে ডুপ্লিকেট কার্ড অপশনটি সিলেক্ট করতে হবে। কারো যদি শুধু কার্ডের উপর প্রদর্শিত তথ্য সংশোধনের প্রয়োজন হয় তাহলে কার্ডের তথ্য পরিবর্তন অপশনটি সিলেকট করতে হবে। তবে, কারো যদি কার্ডে প্রদর্শিত নয় কিন্তু ডাটাবেজের মধ্যে বিদ্যমান কোন তথ্য পরিবর্তন বা আপডেট করার প্রয়োজন হয়, তাহলে অন্যান্য তথ্য পরির্তন অপশনটি সিলেক্ট করতে হবে।

ডেলিভারী টাইপ নির্বাচন

আবেদনের ধরন নির্ধারণের পর নির্বাচন করতে হবে কার্ড ডেলিভারী টাইপ। কার্ড ডেলিভারী টাইপে ডুপ্লিকেট কার্ড এর জন্য ডেলিভারী টাইপে রেগুলার, আর্জেন্ট, রেগুলার স্মার্ট কার্ড ও আর্জেন্ট স্মার্ট কার্ড এই চারটি অপশন পাওয়া যাবে। ডেলিভারী টাইপে এখন স্মার্ট কার্ড অপশনটি থাকলেও প্রকৃত পক্ষে স্মার্ট কার্ড (রেগুলার/জরুরী) এই মুহুর্তে দেয়া হচ্ছেনা। স্মার্ট কার্ড অপশন সিলেক্ট করে ফি জমা দেয়া হলেও এই মুহুর্তে প্রকৃতপক্ষে সাধারণ লেমিনেটেড কার্ডই পাওয়া যাবো। এছাড়া সাধারণ পেপার লেমিনেটেড কার্ড আর স্মার্ট কার্ড এর মধ্যে আপাতত ফির কোন পার্থক্য নেই।

উল্লেখ্য যে, শুধু হারানো কার্ড ডুপ্লিকেট ইস্যুর ক্ষেত্রেই জরুরী অপশন পাওয়া যাবে। কার্ডের তথ্য সংশোধন বা অন্যান্য তথ্য সংশোধনের ক্ষেত্রে জরুরী কোন ক্যাটাগরী নাই। তথ্য সংশোধনের ক্ষেত্রে রেগুলার এবং রেগুলার স্মার্ট কার্ড দুটি অপশন রয়েছে। সংশোধনের ক্ষেত্রেও এই মুহুর্তে স্মার্ট কার্ড দেয়া হচ্ছে না। স্মার্ট কার্ড অপশন সিলেক্ট করে ফি জমা দেয়া হলেও সাধারণ লেমিনেটেড কার্ডই প্রদান করা হবে। এছাড়া পেপার লেমিনেটেড কার্ড আর স্মার্ট কার্ড এর মধ্যে আপাতত ফি’র কোন পার্থক্য নেই। ভবিষ্যতে স্মার্ট কার্ড রিপ্লেসমেন্ট করার পরিকল্পনায় এখানে এই অপশন করা হয়েছে।

ক্যাপচা ইনপুট

রোবট বা স্বয়ংক্রিয় কোন বিষয় নয় এবং ইন্টারফেসটি কোন মানুষই পূরণ করছে। এটা নিশ্চিত হতে ফি ক্যালকুলেটর ইন্টারফেসে ক্যাপচা অপশন দেয়া রয়েছে। বাম পাশের বক্সে প্রদর্শিত কেস সেনসেটিভ ক্যাপচা হুবহু ডান পাশের টেক্সবক্সে লিখে দিতে হবে।

সর্বশেষ

এনআইডি নম্বর, আবেদনের ধরন, ডেলিভারী টাইপ ও ক্যাপচা পুরণ করতে হবে। এরপর হিসেব করুন বাটন চাপতে হবে। সিস্টেম হতে ক্যালকুলেট করে প্রদর্শন করবে আপনার কাঙ্খিত সার্ভিসের জন্য কত টাকা ফি প্রদান করতে হবে। প্রতিটি ফি’র সাথে ১৫% হারে ভ্যাট অন্তর্ভূক্ত রয়েছে। এজন্য আলাদা করে ভ্যাট এর পরিমাণ হিসেব করার প্রয়োজন হবে না।

5 Replies to “এনআইডি ফি ক্যালকুলেটর”

Comments are closed.